শিরোনাম
গুলিস্তানে তৈরি হতো ফোন, লেখা ‘মেড ইন চায়না-ফিনল্যান্ড’ বাংলাদেশকে ২৮৫৪ কোটি টাকা ঋণ দিলো বিশ্বব্যাংক ইউক্রেনকে অস্ত্র দেয়া বন্ধ করুন: পশ্চিমা বিশ্বকে ব্রিটিশ রাজনীতিক টাঙ্গাইলে বাবাকে মেরে মসজিদের মাইকে প্রচার, ছেলে আটক খুলনা-মংলা পোর্ট রেলপথ ডিসেম্বরে চালু হবে : রেলপথ মন্ত্রী আয়মান আল-জাওয়াহিরি: আল-কায়েদা নেতা মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত হয়েছেন বলে খবর প্রচার বিবিসির আমেরিকাকে সরাসরি রাশিয়ার ‘প্রধান হুমকি’ বলে ঘোষণা দিল মস্কো যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে চীন আমাদের গচ্ছিত অর্থ বিনা শর্তে অবিলম্বে ফেরত দিন: আমেরিকাকে তালেবান ‘ইসরাইল এখন আর লেবাননে আগ্রাসন চালানোর সাহস পায় না’
বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:২৫ পূর্বাহ্ন

ইউক্রেনে যুদ্ধবিরতি ঘোষণার পথে রাশিয়া, দাবি ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থার!

/ ৩৫ পঠিত
প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৩ জুলাই, ২০২২

ইউক্রেনে বেকায়দায় পড়েছে পুতিন বাহিনী। কিছুতেই পড়শি দেশটিকে বাগে আনতে পারছে না রুশ সেনা। ফলে প্রচুর ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে শিগগিরই যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করতে পারে রাশিয়া। আর সেই সুযোগেই পালটা হামলার পরিকল্পনা রয়েছে ইউক্রেনের। এমনটাই দাবি করেছে ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থা এমআই-১৬ প্রধান রিচার্ড মুর।

আমেরিকার কলারাডোয় নিরাপত্তা বিষয়ক এসপেন সিকিউরিটি ফোরামের সম্মেলনে হাজির ছিলেন এমআই১৬-এর প্রধান রিচার্ড মুর।

সেখানে তিনি বলেন, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কিকে সরাতে চেয়েছিল রাশিয়া। সেই লক্ষ্য পূরণ হয়নি। এটা পুতিন বাহিনীর বিরাট বড় ব্যর্থতা। আমার মনে হয় যে পুতিনের বাহিনীর দম ফুরিয়ে আসার জোগাড় হয়েছে। এটাও মনে হয় যে আগামী কয়েক সপ্তাহে ইউক্রেনে সেনা পাঠাতে অসুবিধায় পড়বে রাশিয়া। কোনোভাবে যুদ্ধ থামাতে হবে তাদের। আর সে সময়ই ইউক্রেনীয়রা পাল্টা আঘাত হানবেন। তাদের মনোবল এখনো তুঙ্গে। পাশাপাশি, প্রচুর সংখ্যক অস্ত্রশস্ত্রও পাচ্ছে ইউক্রেন।

কোন তথ্যের ভিত্তিতে এই মত ব্যক্ত করেছেন মুর, তাও জানিয়েছেন তিনি। মুরের দাবি, বিভিন্ন ইউরোপীয় শহর থেকে সম্প্রতি ৪০০-র বেশি রুশ গোয়েন্দা কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে রিপোর্ট পাওয়া গিয়েছে। পাশাপাশি, গ্রেফতার হয়েছেন বহু ছদ্মবেশী গোয়েন্দা।

উল্লেখ্য, ফেব্রুয়ারির ২৪ তারিখ ইউক্রেনে ‘বিশেষ সামরিক অভিযান’ শুরু করে রাশিয়া। কিন্তু এখনো কিয়েভ দখল করতে পারেনি তারা। লড়াইয়ে কয়েক হাজার সেনা ও বিপুল অস্ত্র খুইয়ে গত এপ্রিলে সামরিক অভিযানের প্রথম পর্বে ইতি টানার কথা ঘোষণা করে রাশিয়া। পাশাপাশি, দোনবাস অঞ্চলে অভিযান তীব্র করে তোলে পুতিনের বাহিনী। ইতোমধ্যে মারিওপোল দখল করে ফেলেছে রুশ ফৌজ। দোনবাসে ইউক্রেনের শেষ ঘাঁটি দখল করেছে পুতিন বাহিনী। কিন্তু এই যুদ্ধে তাদের বিস্তর ক্ষতি হয়েছে বলে খবর। সম্প্রতি আমেরিকা দাবি করেছে যে ইউক্রেনের সাথে যুদ্ধে মৃত্যু হয়েছে অন্তত ১৫ হাজার রুশ সেনার। আহত কমপক্ষে আরো ৪৫ হাজার।

বিশ্লেষকদের মতে, এমআই-১৬ প্রধান রিচার্ড মুর যতটা আশা করছেন পিরিস্থিতি ততটাও কিয়েভের পক্ষে নয়। কারণ, এখনো যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার মতো প্রচুর রসদ রয়েছে রুশ সেনার। তেল ও গ্যাস রফতানির টাকায় দীর্ঘ দিন লড়াই করে যেতে পারবেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। একইসাথে, আমেরিকা ও পশ্চিমের দেশগুলো থেকে অস্ত্র এলেও তা পর্যাপ্ত নয় বলে একাধিকবার অভিযোগ করেছে কিয়েভ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ