রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ০১:৩১ অপরাহ্ন

রাশিয়ার দখলে সেভেরোদোনেস্ক

/ ২৭ পঠিত
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২১ জুন, ২০২২

মিডিয়া ডেস্ক : রোববার সেভেরোদোনেস্কর শহরতলি মেটিওলকিন দখল করেছিল রাশিয়ার সেনা। সোমবার তারা ঢুকে পড়ল মূল শহরে। পূর্ব ইউক্রেনের এই শহর শিল্পাঞ্চলের জন্য বিখ্যাত।

সেভেরোদোনেস্কের মেয়র সেরহি হারদাই জানিয়েছেন, শিল্পাঞ্চলের বড় অংশ এখন রাশিয়ার সেনার দখলে। তবে এখনো অ্যাজট রাসায়নিক কারখানা ইউক্রেনের সেনার হাতে আছে।

কারখানার ভিতরে আশ্রয় নিয়েছিলেন অন্তত তিন শ’ বেসামরিক মানুষ। তারা সকলেই সেখানে আটকে পড়েছেন। তাদের ঘিরে রেখেছে ইউক্রেনের সেনা।

এর আগে মারিউপোলের একটি কারখানায় ঠিক এভাবেই আটকে পড়েছিলেন বহু বেসামরিক ইউক্রেনীয়। দীর্ঘ দিন ধরে সেই কারখানা ঘিরে লড়াই হয়েছিল। শেষপর্যন্ত জাতিসঙ্ঘের হস্তক্ষেপে ওই কারখানা থেকে উদ্ধার করা হয় বেসামরিক মানুষদের। কারখানায় থাকা ইউক্রেনীয় সেনাদের বন্দী করেছে রাশিয়ার সেনা। সেভেরোদোনেস্কে মারিউপোলের সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

রাশিয়ার সাংবাদিক দিমিত্রি মুরাতভ তার সাহিত্যকীর্তির জন্য নোবেল পুরস্কার পেয়েছিলেন। সম্প্রতি তিনি তার নোবেল মেডেল নিলামে তুলেছিলেন। ১০৩ দশমিক পাঁচ মিলিয়ন ডলার সেখান থেকে পেয়েছেন তিনি। ওই পুরো অর্থই তিনি ইউনিসেফকে দিয়েছেন ইউক্রেনকে সাহায্য করার জন্য।

স্বাধীন সংবাদপত্র নোভায়া গ্যাজেটার সম্পাদক মুরাতভ। প্রথম থেকেই যুদ্ধের তীব্র বিরোধিতা করছেন তিনি। ইউনিসেফকে দেয়া তার অর্থ ইউক্রেনের ঘরহারা শিশুদের জন্য ব্যয় হবে বলে জানিয়েছে ইউনিসেফ।

জেলেনস্কির ভাবনা
ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির উপদেষ্টা আইহোর ঝোভকা ডিডাব্লিউকে জানিয়েছেন, ইউক্রেনের ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্যপদ পাওয়া অনেকটাই এগিয়েছে। তাদের আশা, রেকর্ড সময়ে তারা এই সদস্যপদ পাবে। বস্তুত, সম্প্রতি জার্মানি এবং ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রীও জানিয়েছেন, দ্রুত ইউক্রেনকে ইইউর সদস্যপদ দেয়ার বিষয়ে তারা আশাবাদী। ইউক্রেন এই পদ পেলে সকলের সুবিধা হবে বলে জানিয়েছেন ঝোভকা।

ডেনমার্কের সতর্কবার্তা গ্যাস সরবরাহ ক্রমশ কমে আসতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে ডেনমার্কের গ্যাস সংস্থা। তারা প্রথম পর্যায়ের সতর্কবার্তা ঘোষণা করেছে। ইউরোপে গ্যাস সরবরাহের ক্ষেত্রে সাধারণত তিনটি পর্যায়ে সতর্কবার্তা দেয়া হয়। সোমবার প্রথম পর্যায়ের বার্তা ঘোষণা করেছে ডেনমার্ক।

তারা জানিয়েছে, এখনো সেখানে ৭৫ শতাংশ গ্যাস মজুত আছে। কিন্তু দ্রুত তা কমে আসছে।

সূত্র : ডয়চে ভেলে


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ