শিরোনাম
গুলিস্তানে তৈরি হতো ফোন, লেখা ‘মেড ইন চায়না-ফিনল্যান্ড’ বাংলাদেশকে ২৮৫৪ কোটি টাকা ঋণ দিলো বিশ্বব্যাংক ইউক্রেনকে অস্ত্র দেয়া বন্ধ করুন: পশ্চিমা বিশ্বকে ব্রিটিশ রাজনীতিক টাঙ্গাইলে বাবাকে মেরে মসজিদের মাইকে প্রচার, ছেলে আটক খুলনা-মংলা পোর্ট রেলপথ ডিসেম্বরে চালু হবে : রেলপথ মন্ত্রী আয়মান আল-জাওয়াহিরি: আল-কায়েদা নেতা মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত হয়েছেন বলে খবর প্রচার বিবিসির আমেরিকাকে সরাসরি রাশিয়ার ‘প্রধান হুমকি’ বলে ঘোষণা দিল মস্কো যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে চীন আমাদের গচ্ছিত অর্থ বিনা শর্তে অবিলম্বে ফেরত দিন: আমেরিকাকে তালেবান ‘ইসরাইল এখন আর লেবাননে আগ্রাসন চালানোর সাহস পায় না’
মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৩২ পূর্বাহ্ন

গণহত্যার প্রস্তুতি : আরএসএস সমাবেশে মুসলিম বিরোধী কাজকে কৃতিত্ব হিসাবে তুলে ধরলো হিন্দুত্ববাদী বিজেপি মুখ্যমন্ত্রীরা

/ ৫৩ পঠিত
প্রকাশের সময় : বুধবার, ২৫ মে, ২০২২

ভারতে এখন চারিদিকে শুধুই মুসলিম বিদ্বেষের আগুন জ্বলছে, চলছে মুসলিম গণহত্যার চূড়ান্ত প্রস্তুতি। আর সেই আগুনে নিয়মিত ঘি ঢেলে যাচ্ছে সাধু সন্ন্যাসীর নামধারী উগ্র হিন্দু সন্ত্রাসী ধর্মগুরু ও হিন্দুত্ববাদী নেতা নেত্রীরা। মুসলিম বিদ্বেষী কাজগুলোকে তারা তাদের কৃতিত্ব হিসেবে তুলে ধরছে। যেন অন্যরাও মুসলিম বিদ্বেষী কাজে উৎসাহ পায়।

আরএসএস-অধিভুক্ত ম্যাগাজিন অর্গানাইজার এবং পাঁচজন্যার ৭৫ বছর উদযাপন উপলক্ষ্যে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করার সময়, বিজেপির মুখ্যমন্ত্রীরা তাদের রাজ্যে বিভিন্ন ইসলামফোবিক স্কিম এবং প্রকল্প সম্পর্কে প্রকাশ্যে কথা বলেছে। এগুলোকেই তাদের কৃতিত্ব হিসাবে তুলে ধরেছে তারা।

যোগী আদিত্যনাথ হিন্দুত্ববাদী গোষ্ঠীর সমাবেশে উপস্থিত দর্শকদের বলেছিল, উত্তর প্রদেশে প্রথমবারের মতো রাস্তায় মুসলিমদের ঈদের জামাত করতে দেয়া হয়নি। তাছাড়া বিজেপি সরকারের মুসলিম বিদ্বেষী ক্র্যাকডাউনের পরে নিরুপায় হয়ে “মসজিদের লাউডস্পিকারের ভলিউম কমাতে বাধ্য হয়েছে। অধিকাংশ মসজিদ থেকে হিন্দুত্ববাদী প্রশাসন লাউডস্পিকার সম্পূর্ণভাবে সরিয়ে দিয়েছে।

ইউপির এই উগ্রবাদী মুখ্যমন্ত্রী অযোধ্যায় বাবরী মসজিদ ভেঙ্গে যে রাম মন্দির তৈরি করা হচ্ছে- সেই সম্পর্কে গর্ব করে কথা বলেছে। এই সন্ত্রাসী আরো বলেছে, “কাশী বিশ্বনাথ মন্দির, মথুরা, বৃন্দাবন এবং চিত্রকূটের মতো স্থানে আমাদের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।”

উল্লেখ্য, বাবরী মসজিদ শহীদ করার পর থেকেই অন্যান্য আরও অসংখ্য মসজিদ শহীদ করার ষড়যন্ত্র করছে উগ্র হিন্দুত্ববাদীরা। ইতিমধ্যেই তারা মসজিদ ভেঙ্গে দেওয়ার বিভিন্ন ভিত্তিহীন প্রেক্ষাপট সামনে আনতে শুরু করেছে।

আসামের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা দাবি করেছে যে মাদ্রাসাগুলি বন্ধ করে দেওয়া হেচ্ছে। শর্মা আরো বলেছে, “মাদ্রাসা” শব্দটি বিলুপ্ত হওয়া উচিত।

উত্তর-পূর্ব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যে সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত মাদ্রাসাগুলি বন্ধ করার জন্য একটি ইসলাম বিদ্বেষী পদক্ষেপ নিয়েছে।

হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে এমন মানবাধিকার লঙ্ঘন করার পরও, কথিত আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ও হলুদ মিডিয়াগুলোর এমন নিশ্চুপ থাকাটা এটাই প্রমাণ করে যে, মুসলিমদের স্বাধিকারের ব্যাপারে তাদের কোন পরোয়া নেই। তাদের কাজ হচ্ছে বিশ্বের সামনে অমুসলিমদের অপরাধগুলোকে ধামাচাপা দিয়ে মুসলিমদের অপরাধি হিসেবে উপস্থাপন করা।

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ