মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ১১:০০ পূর্বাহ্ন

ঘরছাড়া

মনীরুজ্জামান সাফীন / ৬০ পঠিত
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১০ মে, ২০২২

জানালায় তাকিয়ে ছুটির শেষ সকালটা দেখছিলাম। মেঘে রাঙা আকাশ। বৃষ্টি ভেজা নীলিমা। গুমোটবাঁধা পৃথিবীর নিস্তব্ধতাও হয়তো আমার মত ‘মন খারাপে’লিপ্ত। এক নিরব হাহাকার চলছিল আমার অন্তপুরে। আমার বিছানা, বালিশ, খাট, টেবিল আলনা শোকেজ সবকিছু আমাকে টানছিল। আমি নিরবে বারান্দায় চলে গেলাম।

আব্বু আজও দোকানে যাচ্ছে। কিন্তু প্রতিদিনের মত ঔজ্জ্বল্য তার চেহারায় দেখছি না। আবেগ তারও আছে। তবে সে আবেগ মনের গহীন কোণে সমাধিস্থ।সহজে প্রকাশ করেন না। সর্বশেষ আমার দাদীর প্রয়াণকালে তার গণ্ডদেশ বেয়ে আসা আবেগমাখা অশ্রুকণা দেখেছিলাম।

আম্মুকে আজ একটু কঠোর দেখা যাচ্ছে। শান্ত। চেহারায় ভাবলেশহীন। ভাল লাগল। অন্তত যাওয়ার সময় দরজায় দাঁড়িয়ে তার হাসিমুখখানাই দেখতে পাব। লোনা পানিতে জর্জরিত ‘ভাল থাকিস’ শব্দটা শুনতে হবে না।

বাবা-মা’র পরশে দীর্ঘদিন ছিলাম তো! তাই একটু মন খারাপ হচ্ছে। কিন্তু এই মন খারাপ আমার একদম গা সওয়া। গামশুদগী’র সাথে উত্তেজনাও কাজ করছিল। মাদরাসায় যাব, উস্তাদদের সাথে দেখে হবে, ছাত্রভাইয়েরা মোলাকাত করব, নতুন জামাত, নতুন কিতাব, নতুন আঙ্গিকে দরস এসব ভাবতেই শিরা-উপশিরায় আনন্দের অ্যান্টিজেন বয়ে যাচ্ছে।

 

শিক্ষার্থী,জামিয়া সাঈদিয়া কারিমিয়া, রামপুরা


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ