শিরোনাম
আল্লামা শফীর ১৩ দফা বাস্তবায়নে পুনরায় সক্রিয় হচ্ছে হেফাজত সরকারবিরোধী আন্দোলন : বিএনপি নেতাকর্মীরা চাঙা তিন কারণে নারায়ণগঞ্জে আবারো গলাকাটা লাশ উদ্ধার গুলিস্তানে তৈরি হতো ফোন, লেখা ‘মেড ইন চায়না-ফিনল্যান্ড’ বাংলাদেশকে ২৮৫৪ কোটি টাকা ঋণ দিলো বিশ্বব্যাংক ইউক্রেনকে অস্ত্র দেয়া বন্ধ করুন: পশ্চিমা বিশ্বকে ব্রিটিশ রাজনীতিক টাঙ্গাইলে বাবাকে মেরে মসজিদের মাইকে প্রচার, ছেলে আটক খুলনা-মংলা পোর্ট রেলপথ ডিসেম্বরে চালু হবে : রেলপথ মন্ত্রী আয়মান আল-জাওয়াহিরি: আল-কায়েদা নেতা মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত হয়েছেন বলে খবর প্রচার বিবিসির আমেরিকাকে সরাসরি রাশিয়ার ‘প্রধান হুমকি’ বলে ঘোষণা দিল মস্কো
বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:৩০ অপরাহ্ন

বেড়েছে আতর, টুপি ও জায়নামাজ বেচাকেনা

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৫৯ পঠিত
প্রকাশের সময় : রবিবার, ১ মে, ২০২২

দোরগোড়ায় ঈদুল ফিতর। ঈদের কেনাকাটা প্রায় শেষের দিকে। শেষ সময়ে আতর, টুপি, জায়নামাজের বাজারে ভিড় করছেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা। গতকাল জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম এলাকায় আতর, টুপি ও জায়নামাজের দোকানগুলোতে বিক্রেতাদের বেশ ব্যস্ত দেখা গেছে।

মসজিদের দক্ষিণ গেটে ও পশ্চিমের মার্কেটে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হচ্ছে টুপি ও আতর।
গোল টুপি, হাজি টুপি, জালি টুপি, কিস্তি টুপির সঙ্গে এবার সমানতালে বিক্রি হচ্ছে মিসরীয় ও আফগানি টুপি। এসব টুপির বেশির ভাগই বাংলাদেশি কারিগরদের বানানো। তবে চায়নিজ, তুর্কি, পাকিস্তানি ও ভারতীয় টুপির কদরও রয়েছে বেশ। বায়তুল মোকাররমের টুপির বাজার ঘুরে দেখা গেছে, পঞ্চাশ থেকে শুরু করে ছয়-সাত শ টাকা দরের টুপিও বিক্রি হচ্ছে। মীম ক্যাপ হাউসের স্বত্বাধিকারী ফরহাদ হাসান বললেন, ‘বেচাবিক্রি ভালোই হচ্ছে। তবে আগে যেমন একটার জায়গায় মানুষ তিনটা টুপি কিনে নিত, এবার সেটা হচ্ছে না। টুপির সঙ্গে অনেকে বাড়ির মুরব্বিদের জন্য তসবিহ কিনছে। ’

জায়নামাজ সাধারণত দুই সাইজের হয়। ৮০ বাই ১২০ সেন্টিমিটার এবং ৭০ বাই ১১০ সেন্টিমিটার। আকার ও কাপড় অনুযায়ী দামের তারতম্য হয়। সালমান, আল-মুসলিম, মেহরাব, ই-টেক্স, আইডিন ডাবল প্লাসসহ নানা কম্পানির জায়নামাজ রয়েছে। সবচেয়ে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে সাফা টেক্সের জায়নামাজ। সাধারণ একটি জায়নামাজ কেনা যায় ৩০০ টাকায়, সাফা টেক্সের জায়নামাজ কিনতে হলে ক্রেতাকে গুনতে হয় তিন হাজার থেকে সাড়ে তিন হাজার ।

বায়তুল মোকাররম মার্কেটে দীর্ঘদিন ধরে জায়নামাজের ব্যবসা করে আসছেন মো. মফিজ প্রধানীয়া। তিনি বলেন, ‘ক্রেতারা বেশি পছন্দ করে তুর্কি জায়নামাজ। ব্যবসায়ীরাও তাই তুর্কি জায়নামাজই বেশি রাখে দোকানে। জমিনে মখমল ব্যবহার করে মোটা ফোমে তৈরি ভারী জায়নামাজ কেউ কেউ পছন্দ করে। ’ তাঁর মতে, সহনীয় দামে একটি ভালো জায়নামাজ হচ্ছে ‘আইডিন জমরুদ’। দাম পড়বে সাতশ থেকে আটশ টাকা। পান্থপথের বসুন্ধরা শপিং মলে ঘুরে দেখা গেছে, এখানেও প্রায় কাছাকাছি দামেই জায়নামাজ বিক্রি হচ্ছে।
ঈদের জামাতে যাওয়ার আগে অনেকেই আতর ব্যবহার করতে পছন্দ করে। তাই এই মৌসুমে সবচেয়ে বেশি আতর বিক্রি হয় বলে জানালেন আল হারামাইনের বসুন্ধরা শপিং মলের শাখা ব্যবস্থাপক সজিবুর রহমান। বাংলাদেশি মালিকানার এই সুগন্ধির ব্র্যান্ডের দুনিয়াজোড়া খ্যাতি রয়েছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের আজমানে মূল কারখানা থেকে বসুন্ধরায় সরাসরি পণ্য আসে বলে জানালেন সজিবুর। কস্তুরী, মেশক আম্বার, ব্ল্যাক উদ, হোয়াইট উদ, বোখরসহ আতর ও সাধারণ সুগন্ধির বিশাল সমাহার রয়েছে এখানে।

একটি বেসরকারি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের প্রশাসন বিভাগের মহাব্যবস্থাপক আবিদ উদ্দিন মাহমুদ ৩৮ হাজার ৭০০ টাকার সুগন্ধি কিনেছেন আল হারামাইন থেকে। কালের কণ্ঠকে তিনি বলেন, ‘আমার নিজের পছন্দ ফরাসি সুগন্ধি ফারেনহাইট। কিন্তু ঈদ একটি ধর্মীয় উৎসব এবং এই সময়ে আতরই বেশি প্রাসঙ্গিক।বসুন্ধরা শপিং মলের লেভেল সেভেনে কয়েকটি টুপি, তসবিহ, জায়নামাজ ও সুগন্ধির দোকান রয়েছে। এখানে যেসব সুগন্ধি বিক্রি হয় তার সবই বিদেশি বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। আল-খালিজ আতরের দোকানে সৌদি ব্র্যান্ড মিস ডলার, স্কেপ, কুল ওয়াটার, গোল্ডেন সেন্ট, ক্লোরাগুচি, আমির আল-উদ, হোয়াইট উদ, সুলতান, গোলেলালা আতর বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে সর্বোচ্চ ছয় হাজার টাকা প্রতি তোলা দামে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ