শিরোনাম
লেখক ফোরাম সাহিত্য প্রতিযোগিতার বিচারক প্যানেলে আছেন যারা ডিএসইসি লেখক সম্মাননা পেলেন লেখক ফোরামের জহির উদ্দিন বাবর ও মাসউদুল কাদির আল্লামা শফীর ১৩ দফা বাস্তবায়নে পুনরায় সক্রিয় হচ্ছে হেফাজত সরকারবিরোধী আন্দোলন : বিএনপি নেতাকর্মীরা চাঙা তিন কারণে নারায়ণগঞ্জে আবারো গলাকাটা লাশ উদ্ধার গুলিস্তানে তৈরি হতো ফোন, লেখা ‘মেড ইন চায়না-ফিনল্যান্ড’ বাংলাদেশকে ২৮৫৪ কোটি টাকা ঋণ দিলো বিশ্বব্যাংক ইউক্রেনকে অস্ত্র দেয়া বন্ধ করুন: পশ্চিমা বিশ্বকে ব্রিটিশ রাজনীতিক টাঙ্গাইলে বাবাকে মেরে মসজিদের মাইকে প্রচার, ছেলে আটক খুলনা-মংলা পোর্ট রেলপথ ডিসেম্বরে চালু হবে : রেলপথ মন্ত্রী
মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩, ১০:১৯ অপরাহ্ন

‘গরিবের সুপারশপ’ বিদ্যানন্দে ১০ টাকায় ৫০০ টাকার বাজার

সালাহউদ্দীন / ১৫৪ পঠিত
প্রকাশের সময় : রবিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২২

টোকেন দিয়ে বাজার করছেন এক নারী

পবিত্র রমজানে নিত্যপণ্যের লাগাম ছাড়া দামে মধ্যবিত্তরাও হাঁপিয়ে উঠেছে। অসহায়, দুস্থ ও গরিব মানুষ দিশাহারা। এই অসহায়দের পাশে ভিন্নধর্মী আয়োজন ‘গরিবের সুপারশপ’ নিয়ে দাঁড়িয়েছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন’।

গতকাল রাজধানীর কারওয়ান বাজার এলাকায় ‘ইচ্ছেমতো কেনার স্বাধীনতা’ স্লোগানে এই সুপারশপ থেকে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার নিম্নবিত্ত ও সুবিধাবঞ্চিত ক্রেতারা মাত্র ১০ টাকা মূল্য দিয়ে প্রায় ৫০০ টাকার পণ্য ক্রয় করে।
সরেজমিনে দেখা গেছে, সদস্যরা টোকেনের মাধ্যমে ১০ টাকা দিয়ে সুশৃঙ্খলভাবে ব্যাগ ভরে বাজার করছে। তারা এক টাকায় চাল, দুই টাকায় অ্যাংকর ডাল, তিন টাকায় মসুর ডাল, ছয় টাকায় তেল, দুই টাকায় নুডলস, এক টাকায় বিস্কুট, দুই টাকায় ছোলা, এক টাকায় লবণ, এক টাকায় খেজুর নিয়েছে। তবে কাউকে ১০ টাকার বেশি পণ্য দেওয়া হয়নি। চাহিদামতো ১০ টাকায় যার যেটা প্রয়োজন ইচ্ছামতো সেটা নিয়েছে। দেড় শতাধিক ক্রেতা টোকেনের মাধ্যমে বাজার করে।

এ বিষয়ে আয়োজক সদস্যরা জানান, বিদ্যানন্দের চাহিদাসাপেক্ষ ও শৃঙ্খলা রক্ষার্থে নামেমাত্র ১০ টাকার মধ্যেই এই বাজার রাখা হয়েছে। যেখানে ১০ টাকায় প্রায় ৫০০ টাকার বাজার দেওয়া হয়েছে। প্রয়োজন অনুসারে যার যেটা চাহিদা, বাছাই করে সেটাই নিয়েছে।

এ বিষয়ে কারওয়ান বাজার এলাকার দিনমজুর মজিদ মিয়া বলেন, ‘এখন জিনিসপত্রের যে দাম, বাজারে ঢুকতে ভয় লাগে। পাঁচটার দরদাম জিগায়, একটা পণ্য নিতে হয়। কখনো দরদাম জিগায় নেওয়াও হয় না। আর এই কষ্টের সময়ে ১০ টাকায় এতগুলা বাজার পাওয়ায় আমরা অনেক খুশি। ’ মজিদের মতো আরো অনেক নারী-পুরুষ সন্তুষ্টির কথা জানান।

বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের হেড অব কমিউনিকেশন অফিসার সালমান খান ইয়াছিন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘রোজা উপলক্ষে আমাদের এই বিশেষ আয়োজন। পুরো রমজান মাসজুড়ে প্রতি সপ্তাহে দুই দিন পৃথক পৃথক এলাকায় এই বাজার বসবে। এখান থেকে টোকেনের মাধ্যমে ১০ টাকা দিয়ে ক্রেতারা বাজার করতে পারবে। বাজার বসার আগে যারা সুবিধাবঞ্চিত তাদের খুঁজে এই টোকেন দেওয়া হয়। প্রথম রমজানে মিরপুর এলাকায় এই ‘গরিবের সুপারশপ’ উদ্বোধন করা হয় বলে জানান তিনি।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ