শিরোনাম
জায়নিস্ট আগ্রাসন : ফিলিস্তিনি যুবককে গুলি করেই গুম করে ফেললো ইসরাইল আশ-শাবাবের দুর্দান্ত সব হামলায় ৩৪ কুফ্ফার সেনা হতাহত মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে জেনে নিন এবারের তাকমীল জামাতের পরীক্ষার রেজাল্ট! ‘ইসলামপ্রিয় নেতৃত্বের ঐক্যবদ্ধ অবস্থানকে ভয় পায় সরকার’ পদ্মা সেতুতে নিয়ে খালেদাকে টুস করে ফেলে দেওয়া উচিত : প্রধানমন্ত্রী দাওরায়ে হাদীস (তাকমীল) পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের তারিখ ঘোষণা ইসলাম ও ইসলামী শিক্ষা নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে: মুফতী ফয়জুল করীম শ্বেতপত্র প্রকাশ করে গণকমিশন সংবিধান বিরোধী অপরাধ করেছে: ইসলামী ছাত্র আন্দোলন বাংলাদেশ মাওলানা এনায়েত উল্লাহ আব্বাসীর বিরুদ্ধে মামলা চট্টগ্রামে জামায়াতের থানা আমিরসহ ৪৯ নেতাকর্মী গ্রেফতার
বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৫:২১ অপরাহ্ন

বাংলাদেশের সঙ্গে নিরাপত্তা সহযোগিতা বাড়াতে আগ্রহী যুক্তরাষ্ট্র

শাহরিয়ার কবির / ৩১ পঠিত
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৭ এপ্রিল, ২০২২

বাংলাদেশের সঙ্গে নিরাপত্তা সহযোগিতা বাড়ানোর আগ্রহ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ওয়াশিংটনে স্থানীয় সময় বুধবার বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে অষ্টম রাউন্ডের নিরাপত্তা সংলাপে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে এই আগ্রহের কথা জানানো হয়।

বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্বে ছিলেন মাসুদ বিন মোমেন। যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে ছিলেন দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আর্মস কন্ট্রোল অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল সিকিউরিটি আন্ডার সেক্রেটারি বনি ডেনিস জেনকিনস।

উদ্বোধনী বক্তব্যে মাসুদ বিন মোমেন বলেছেন, বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তার অংশীদারিত্বকে গভীরভাবে মূল্যায়ন করে।

এ সময় মার্কিন প্রতিনিধিদল বাংলাদেশের সঙ্গে সুদৃঢ় সম্পর্কের প্রশংসা করেছেন। তারা জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশের সাফল্য ও নেতৃত্বের প্রশংসা করেছেন। এ ছাড়া বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়ন ও প্রাতিষ্ঠানিক উন্নয়নে সহায়তা করতে ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

দিনব্যাপী বৈঠকে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা, বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র নিরাপত্তাসহ সামরিক প্রশিক্ষণ, সমুদ্র নিরাপত্তা, প্রস্তাবিত প্রতিরক্ষা চুক্তি, প্রতিরক্ষাব্যবস্থা ক্রয় ও সক্ষমতা উন্নয়ন, আঞ্চলিক সমস্যা যেমন— রোহিঙ্গা, ইন্দো-প্যাসিফিক এবং সন্ত্রাস দমন ও বেসামরিক নিরাপত্তা সহযোগিতার মতো ক্ষেত্রগুলো নিয়ে আলোচনা হয়।

বাংলাদেশের পক্ষ থেকে র্যা বের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয় এবং মার্কিন পক্ষকে নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানানো হয়। এ সময় বাংলাদেশের পক্ষ থেকে সন্ত্রাস, সহিংস চরমপন্থা এবং আন্তর্জাতিক অপরাধের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের লড়াইয়ে র্যা বের অগ্রণী ভূমিকা তুলে ধরা হয়। এছাড়া র্যা বের উপর নিষেধাজ্ঞা কতটা অযৌক্তিক তাও বিশদভাবে ব্যাখ্যা করা হয়। তবে এসব বিষয়ে দুপক্ষ আলোচনা চালিয়ে যেতে সম্মত হয়েছে।

সবশেষে দুপক্ষ নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা এবং বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা অব্যাহত রাখতে সম্মত হয়েছে। পরবর্তী নিরাপত্তা সংলাপ আগামী বছর ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ