শিরোনাম
কোরবানির ঈদ আসছে সোয়া কোটি পশু একাধিক পাকিস্তানি দূতাবাসের অ্যাকাউন্ট ব্লক করল টুইটার ইন্ডিয়া মসজিদে প্রবেশে সরকারের নতুন নির্দেশনা – ভারতে শাতেমে রাসূলের উচিত শিক্ষা দিয়েছেন নবী প্রেমিক দুই মুসলিম যুবক! ‘দা কাশ্মীর ফাইলস’ যেভাবে মুসলিমদের জন্য ভারতের ভূমিকে সঙ্কুচিত করে দিয়েছে ইউক্রেনে বিপণী কেন্দ্রে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় : হতাহত বেড়ে ৫০ তুরস্কে সমকামী কর্মীদের ‘প্রাইড মার্চ’ আটকাতে গ্রেফতার ২০০ ইরান-ইসরায়েল ছায়াযুদ্ধ কি সরাসরি বাস্তব যুদ্ধে রূপ নিতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রে নারীদের গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার বাতিল কেন সৌদি যুবরাজের ঘনিষ্ঠ হতে উদগ্রীব এরদোগান?
বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ০৭:২৭ পূর্বাহ্ন

“আমি একা নই, আমার মত হাজার হাজার বাচ্চা মেয়েদের নিয়ে ধর্ষণ করা হয় ইসরাইয়েলি কারাগারে”—ফাতেমা

/ ৩৬৮ পঠিত
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৬ মে, ২০২০

মিডিয়া ডেস্ক : সরাইলি সেনাবাহিনী কর্তৃক আবু গারিব অন্ধকার কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়া কিছু মা –বোনদের সাক্ষাকার নিচে হুবহু তুলে ধরা হলঃ

“হটাৎ রাতে এসে আমাকে ধরে নিয়ে যায়, সেই রাতে ওরা ছয় জনে মিলে ওরা আমাকে ধর্ষণ করে, এরপরে কারাগারে জিজ্ঞাসাবাদের নামে আরো অনেকবার আমি ওদের দারা ধর্ষিত হয়েছি।  আমি শুধু একাই নই,  এরকম হাজারো মেয়েকে জোর করে ধর্ষণ করা হয় ইজরাইলি কারাগারে”।

বলছিলেন আমার ফিলিস্তিনের গাজার বান্ধবী ফাতেমা মুশাহিদ।

“সন্ধ্যা হলেই ওরা দলবেঁধে আসতো আর নিরাপত্তা অভিযানের নাম করে পুরো শহরের প্রতিটা বাড়িতে হামলা চালায়.. নামাজ পড়ে নামাজের পাটিতে বসে ছিলাম হটাৎ এক রাতে, আমার ১২ বছরের মেয়েটা কোরআন তেলাওয়াত করছিল হঠাৎই বাড়ির মেইন গেটে মার্কিন সৈন্যরা,  আমরা বুঝতে পারলাম আর রক্ষা নেই…..”।

“আমার মেয়েটাকে আলমারির মধ্যে ঢুকিয়ে রেখেছিলাম।

কিন্তু ওরা সব জায়গায় সার্চ করে আমাকে আর আমার মেয়েটাকে ধরে নিয়ে গেল।

দীর্ঘ আট মাস ইরাকের আবু গারিব কারাগারে, আমাকে আর আমার ১২ বছরের মেয়েকে ধর্ষণ করেছিল।

এছারা আমার মেয়েকে আমার সামনে ধর্ষণ করতো। আবার মেয়ের সামনে আমাকে ধর্ষণ করতো।

মরন কুপ থেকে যখন মুক্তি পেলাম তার সপ্তাহখানেক পরেই আমার ১২ বছরের মেয়েটা আত্মহত্যা করল।

আর আমি এখনো জীবন্ত লাশ হয়ে বেচে আছি”।

——— বলছিলেন ইরাকের আবু গারিব কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়া এক মা।

আমার সাথে ১৮ বছরের একটা ফিলিস্তিনের গাজার ছেলের সাথে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কথা হতো। ও বলল ওর যখন ১০ বছর বয়স তখন  ওকে প্রথমবার গ্রেপ্তার করে ইসরাইলি নরপিচাস সেনাবাহিনী। 

একটি অন্ধকার কারাগারে রাখা হতো, খাবার খুব সীমিত দিত,  শুধু  আমি একা নযই এরকম আরো অনেক গুলো বাচ্চা মেয়েদের কে এবং সেখানে ঘন্টার পর ঘন্টা আটকে রেখে ধর্ষন করত ওরা।  পানি সরবরাহ করা হতো না অমানুষিক নির্যাতন করা হতো,  অন্ধকার কারাগারে প্রতি সপ্তাহে একটা করে ইনজেকশন দিতো আমার শরীরে গর্ভপাতের এবং হিব্রু ভাষায় লিখিত একটা কাগজে স্বাক্ষর নিয়ে আমাকে মুক্তি দিল।

আমাকে দ্বিতীয়বারের মত যখন গ্রেফতার করা হয় আমার যখন ১৫ বছর বয়স তখন একই কায়দায়

আমাকে নির্যাতন করা হয় এবং মুক্তির সময় হিব্রু ভাষার একটা সাদা কাগজ দেওয়া হয়,

তখন আমি হিব্রু ভাষা পড়তে জানি তাতে লেখা ছিল “আমি আজীবন এর জন্য ইসরাইলি সেনাবাহিনীর গোলাম হিসেবে স্বাক্ষর করলাম

এবং আমি আমার কৃত অপরাধ ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর কাছে স্বীকার করেছি এবং

যখন ইচ্ছা তখন ইসরায়েলি সেনাবাহিনী আমাকে পুনরায় গ্রেপ্তার করতে পারবে এবং

পরের বার যখন আমি বাইরে এসে ডাক্তার দেখালাম ডাক্তার বলল আমার শরীরে

এমন কিছু ইনজেকশন করা হয়েছে যা নার্ভ সিস্টেমকে দুর্বল করে দিয়েছে, এবং আমি অর্ধ পাগল হয়ে গিয়েছি….

এরকম কয়েক হাজার প্যারা লিখতে পারবো এমন ঘটনা আমার জানা আছে,

হে ভাই হে বোন তুমি একবারও ভেবেছো?

এইসব নিপীড়িত নির্যাতিত ভাই বোনদের কথা??

তুমি খাও দাও মাস্তি করো আর টিক টক ভিডিও বানাও আসন্ন বিপদ সম্পর্কে আমি তোমাকে সতর্ক করছি ….

বাংলাদেশের শীঘ্রই এমন একটা সময় আসছে……

কিছু না পারো অন্তত তাহাজ্জুতের জায়নামাজে দাঁড়িয়ে তাদের জন্য একটু দোয়া করো যেন তারা একটু শান্তিতে থাকতে পারে।

অন্তত একটু শান্তিতে ঘুমাতে পারে কারণ ওদের ঘুম গুলো ওদের ছেড়ে পালিয়েছে …।।

সূত্র: এবিপি আনন্দ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ