শিরোনাম
জায়নিস্ট আগ্রাসন : ফিলিস্তিনি যুবককে গুলি করেই গুম করে ফেললো ইসরাইল আশ-শাবাবের দুর্দান্ত সব হামলায় ৩৪ কুফ্ফার সেনা হতাহত মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে জেনে নিন এবারের তাকমীল জামাতের পরীক্ষার রেজাল্ট! ‘ইসলামপ্রিয় নেতৃত্বের ঐক্যবদ্ধ অবস্থানকে ভয় পায় সরকার’ পদ্মা সেতুতে নিয়ে খালেদাকে টুস করে ফেলে দেওয়া উচিত : প্রধানমন্ত্রী দাওরায়ে হাদীস (তাকমীল) পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের তারিখ ঘোষণা ইসলাম ও ইসলামী শিক্ষা নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে: মুফতী ফয়জুল করীম শ্বেতপত্র প্রকাশ করে গণকমিশন সংবিধান বিরোধী অপরাধ করেছে: ইসলামী ছাত্র আন্দোলন বাংলাদেশ মাওলানা এনায়েত উল্লাহ আব্বাসীর বিরুদ্ধে মামলা চট্টগ্রামে জামায়াতের থানা আমিরসহ ৪৯ নেতাকর্মী গ্রেফতার
বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৫:৫৬ অপরাহ্ন

‘ঐতিহাসিক চুক্তির’ পর ইতালিতে খুলে দেওয়া হচ্ছে মসজিদ ও ধর্মীয় স্থানগুলো !

/ ৩০২ পঠিত
প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৭ মে, ২০২০

আওয়ার মিডিয়া : দীর্ঘদিন ধরে করোনা ভাইরাসের কারণে ইতালিতে চলছিল কঠোর লকডাউন৷ তবে সম্প্রতি লকডাউন অনেকটাই শিথিল হয়ে পড়েছে। আর এই শিথিলতার অংশ হিসেবে মসজিদগুলো খুলে দিতে দেশটির নেতৃত্বস্থানীয় মুসলিম সংগঠনগুলোর সঙ্গে একটি যুগান্তকারী চুক্তি সই করেছে ইতালি সরকার।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় পালাজ্জো চিগিতে একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে চুক্তিটিতে সই হয়েছে। চুক্তি অনুযায়ী ১৮ মে থেকে ক্যাথলিক গির্জাসহ সব ধরনের ধর্মীয় স্থান খুলে দেয়া হচ্ছে।

তবে সেক্ষেত্রে ধর্মীয় কর্তৃপক্ষকে স্বাস্থ্যগত ও সামাজিক দূরত্বের বিধি বাস্তবায়নের নিশ্চয়তা দিতে হবে।

দেশটিতে মুসলমান প্রতিনিধিদের সঙ্গে সরকারের এই প্রথম কোনো চুক্তি সই হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানকে পরিপূর্ণ আইনগত শনাক্তকরণ ও স্বীকৃতির পথে এটিকে মাইলফলক হিসেবে দেখা হচ্ছে।

চুক্তিতে সই করেন প্রধানমন্ত্রী গুইসেপ্পি কন্টি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লুসিয়ানা লামোরজেস ও চারটি ইসলামি সংস্থার প্রতিনিধিরা। তাদের মধ্যে ছিলেন, ইতালীয় ইসলামিক ধর্মীয় কমিউনিটি, ইতালীয় ইসলামি সংগঠন, দ্য গ্রেট মস্ক অব রোম ও ইতালি ইসলামিক কনফেডারেশন।

এ চুক্তিকে ঐতিহাসিক ঘটনা বলে উল্লেখ করেছেন ইতালীয় ইসলামিক ধর্মীয় কমিউনিটির প্রধান ইয়াহইয়া পাল্লাভিসিনি। তিনি বলেন, এই চুক্তি আন্তঃপ্রাতিষ্ঠানিক সহযোগিতার একটি মডেল দাঁড় করিয়েছে। এছাড়া ইতালিতে মুসলমানদের ইবাদতের স্থানের সমান মর্যাদা ও সুযোগও নিশ্চিত হয়েছে।

বাঙালি, পাকিস্তানি ও সেনেগালি মুসলমান সংগঠনের প্রতিনিধিরাও এই চুক্তিকে স্বাগত জানিয়েছেন। নিরাপদে মসজিদ খুলে দিতে ইতালির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় ও ধর্মীয় সম্প্রদায়ের মধ্যে কয়েক সপ্তাহের আলোচনার পর চুক্তিটি সই হয়েছে।

ইতালির প্রধানমন্ত্রীকে দ্য ইউনিয়ন অব ইসলামিক কমিউনিটিজের সভাপতি ইয়াসিন লাফরান বলেন, চুক্তি হওয়ার পরেও ঈদুল ফিতরে মসজিদ বন্ধ থাকবে। ২৪ মে’র আগে আমরা মসজিদ ও ইসলামিক কেন্দ্র খুলবো না। এটি অবশ্যই একটি দুঃখজনক সিদ্ধান্ত। কিন্তু আমরা মনে করি, এটা দায়িত্বশীলতার ব্যাপারও।

লাফরাম বলেন, মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে দীর্ঘ আলোচনার পর এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সামাজিক দূরত্ব সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। সংগঠনগুলোর উদ্বেগ, ছোট ও মাঝারি ধরনের মসজিদগুলোতে তা রক্ষা করা সম্ভব হবে না।

উল্লেখ্য, বৈশ্বিক মহামারী থেকে বাঁচতে গত ৯ মার্চ লকডাউন শুরু হওয়ার পর ইতালিতে মসজিদ, ধর্মীয় কক্ষ ও ইসলামিক কেন্দ্রগুলো এতদিন বন্ধ রাখা হয়েছিল।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ